জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের অনার্স ভর্তির বিস্তারিত।

অনার্স ১ম বর্ষে ভর্তির আবেদন ইতোমধ্যে শেষ হয়েছে। ভর্তি প্রার্থীরা অধীর আগ্রহে অপেক্ষা করছে আবেদনের ফলাফল ও ১ম মেধা তালিকা কবে নাগাদ প্রকাশ করা হবে। এখানে আপনাদের সামনে তুলে ধরবো কিভাবে  অনার্স ১ম বর্ষ ভর্তির রেজাল্ট দেখবেন এবং ফলাফল পরবর্তী  করণীয় বিষয়াবলি…

অনার্স ভর্তির ফলাফল কবে দিবে?

জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের অনার্স ভর্তির আবেদনের সময়সীমা শেষ হওয়ার ৭/১০ দিনের মধ্যেই ১ম মেধাতালিকা প্রকাশ করে থাকে। সে অনুযায়ী জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের অনার্স ১ম বর্ষ ভর্তির ফলাফল খুব শীঘ্রই প্রকাশ করা হবে। তবে ১ম মেধা তালিকা প্রকাশের সম্ভাব্য তারিখ ২০ থেকে ২৫  জুনের ভিতরে…

আর অনার্স ভর্তিকৃত ১ম বর্ষে শিক্ষার্থীদের ক্লাস জুলাইয়ের ৩ তারিখ থেকে শুরু হবে…

অনার্স ভর্তির ফলাফল ও মেধা তালিকা দেখার পদ্ধতি-

আপনি দুই টি উপায়ে অনার্স ভর্তির রেজাল্ট দেখতে পারবেন। প্রথম মতো এসএমএস এর মাধ্যমে এবং ২য় তো অনলাইনে জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের ভর্তি বিষয়ক ওয়েবসাইটের এর মাধ্যমে। বলে রাখা ভালো, কারো নাম্বারে অটোমেটিক রেজাল্টের SMS যাবে না। সবাই কে নিজ দায়িত্বে রেজাল্ট দেখতে হবে…

SMS এর মাধ্যমে অনার্স ভর্তির ফলাফল ও মেধা তালিকা দেখার নিয়ম-

জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের ২০২১-২০২২ শিক্ষাবর্ষে ১ম বর্ষ স্নাতক (সম্মান) অনার্স ভর্তি কার্যক্রমে বিষয়ভিত্তিক ১ম মেধা তালিকার ফলাফল SMS এ ফল প্রকাশের দিন বিকাল ৪ টা থেকে পাওয়া যাবে।

SMS এ রেজাল্ট দেখতে ফোনের Message অপশনে গিয়ে টাইপ করুন nu এরপর একটি স্পেস/ফাঁক দিয়ে টাইপ করুন athn তারপর আরও একটি স্পেস/ফাঁক দিয়ে ভর্তির Admissin Roll no টাইপ করে 16222 নম্বরে send করতে হবে। ফিরতি মেসেজে পেয়ে যাবেন অনার্স ১ম বর্ষে ভর্তির ফলাফল…

উদাহরণঃ
(nu<space>athn<space>roll no টাইপ
করে 16222 নম্বরে send করতে হবে)

ঠিক এভাবে: (nu athn 1234567) send 16222 নাম্বারে

অনলাইনে অনার্স ভর্তির ফলাফল ও মেধা তালিকা দেখার নিয়ম-

জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের ২০২১-২০২২ শিক্ষাবর্ষে ১ম বর্ষ স্নাতক (সম্মান) শ্রেণির ভর্তি কার্যক্রমে বিষয়ভিত্তিক ১ম মেধা তালিকার ফলাফল ভর্তি বিষয়ক ওয়েবসাইটে ( www.nu.ac.bd/admissions ) এ ফলাফল প্রকাশের দিন রাত ৯টা থেকে পাওয়ার যাবে…

অনার্স ১ম বর্ষে ভর্তির ফলাফল অনলাইনে রাত ৯ টায় প্রকাশ করার কথা থাকলেও এর আগে থেকেই অনলাইনে পাওয়া যায়। অনার্স ভর্তির ফলাফল ও মেধা তালিকা অনলাইনে দেখার জন্য জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের ওয়েবসাইট ( www.nu.ac.bd/admissions )
প্রবেশ করে Applicant Login অপশন থেকে Honours Login লিংকে গিয়ে সঠিক রােল নম্বর ও পিন এন্ট্রি দিতে হবে। এরপর লগইন করলেই পেয়ে যাবেন অনার্স ১ম বর্ষের ভর্তির রেজাল্ট…

১ম মেধা তালিকা চান্স প্রাপ্তদের জন্য করনীয়:

• ১ম মেধা তালিকায় স্থানপ্রাপ্ত প্রার্থীদের অনলাইনে ভর্তি ফরম পূরণের তারিখ: ০০/০৬/২০২২ (কলেজের নোটিশে বলা থাকবে)

প্রার্থীকে জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের ভর্তি বিষয়ক ওয়েবসাইটের (www.nu.ac.bd/admissions)  থেকে Applicant Login অপশন থেকে Honours Login লিংকে গিয়ে সঠিক রােল নম্বর ও পিন এন্ট্রি দিয়ে চূড়ান্ত ভর্তি ফরম পূরণ করতে হবে…

• ১ম মেধা তালিকায় স্থানপ্রাপ্ত প্রার্থীর ভর্তি
ফরম কলেজে জমা দেয়ার তারিখ: … /…/… (কলেজ আলাদা নোটিশ দিয়ে ভর্তি করাবে,তাই কলেজের নোটিশ চেক করুন)

• কলেজ কর্তৃক ১ম মেধা তালিকায় স্থানপ্রাপ্ত প্রার্থীদের ভর্তি নিশ্চয়নের তারিখ: … /…/…

#অনলাইনে_জাতীয়_বিশ্ববিদ্যালয়ের_অনার্স_ভর্তি_ফরম_পূরন_করবেন_যেভাবে

আগে বলে রাখি, যারা নিজে আবেদন করেছেন বা অনলাইনে অভিজ্ঞতা আছে, শুধু তারাই নিজের ভর্তির ফরম নিজে পূরণ করবেন। অন্যথায় দোকান থেকে পূরণ করা শ্রেয়! ভর্তি ফরম পূরণ করতে ২০/৫০ টাকা মত নিতে পারে…

NU ওয়েবসাইটে এ গিয়ে আপনার ভর্তি রোল ও পিন দিয়ে লগইন করুন । আপনার আইডির একদম নিচে admission information এর admission from এ ক্লিক করুন। একটা ফরম দেখতে পাবেন ওখানে যা যা এন্ট্রি দিতে হবে তা নিচে বলা হল:

• religion : যারা মুসলিম তারা islam দিবেন, হিন্দু রা hinduism সিলেক্ট করবেন।
• nationality : Bangladeshi আর অন্য দেশের হইলে উল্লেখ করবেন।
• martial status : বিয়ে না হইলে unmarried দিবেন আর বিয়ে হইলে married সিলেক্ট করবেন।
• guardian name : আপনার বাবা-মা, অথবা যিনি আপনার অভিভাবক তার নাম দিবেন।
• guardian’s mobile number : আপনার বাবা-মা, অথবা যিনি আপনার অভিভাবক তার নাম্বার দিবেন।
• father/mother/guardians annual income : আপনার বাবা-মা, অথবা যিনি আপনার অভিভাবক তার বাৎসরিক আয় দিবেন। ১,০০,০০০ বা ১,৫০,০০০ এইরকম সংখ্যা বসায় দিতে পারেন।
• permanent address : আপনার স্থায়ী ঠিকানা দিবেন। জেলা সিলেক্ট করবেন।
• present address : আপনার বর্তমান ঠিকানা দিবেন। জেলা সিলেক্ট করবেন।

উপরের সবকিছু ইংরেজিতে পূরণ করতে হবে এবং সাবমিট দিয়ে দিলে আর পূরণ করার সুযোগ থাকবে না।

• মেইন পয়েন্ট : Do you want to change your assigned on your given(মাইগ্রেশন) preference list : আপনার প্রথম চয়েসের সাবজেক্ট টা যদি না আসে, যে সাবজেক্ট আসচ্ছে তার পরিবর্তে অন্য একটি ভালো সাবজেক্ট পেতে চান সেক্ষেত্রে আপনি  সাবজেক্ট পরিবর্তন করার জন্য মাইগ্রেশন করতে পারবেন। সাবজেক্ট পরিবর্তন করতে চাইলে yes এ ক্লিক করবেন আর যদি আপনি সাবজেক্ট পরিবর্তন করতে না চান no দিবেন।

#মাইগ্রেশন_নিয়ে_সংক্ষেপে_আলোচনা
yes or no কেন দিবেন?

{এটা হলো মাইগ্রেশন on বা off রাখা, মাইগ্রেশনে সব সময় উপরে সাবজেক্ট পেতে পারো, তবে নিচের সাবজেক্ট আসবে না।

মনেকর : তুমি ১.হিসাব বিজ্ঞান ২. ম্যানেজমেন্ট ৩. ফিন্যান্স ৪. রাষ্ট্রবিজ্ঞান দিয়ে আবেদন করছিলে, এখন তোমার রাষ্ট্রবিজ্ঞান আসচ্ছে, তুমি চাচ্ছো হিসাববিজ্ঞান বা ম্যানেজমেন্ট থেকে যেকোন একটা সাবজেক্টে পড়তে। তাহলে তুমি yes রাখবে মাইগ্রেশনে।

আর যদি ম্যানেজমেন্ট আসে আর তুমি চাচ্ছো সেটা নিয়ে পড়তে তাহলে তুমি off দিবা মাইগ্রেশন। আর কারো যদি ১ম চয়েস চলে আসে তাহলে তার মাইগ্রেশন হবে না আর। কারন মাইগ্রেশন সব সময় উপরে দিকে যায় নিচে দিকে যায় না। আর মাইগ্রেশনে সাবজেক্ট পরিবর্তন হলে, রাষ্ট্রবিজ্ঞান থেকে যদি ফিন্যান্স বা ম্যানেজমেন্ট চলে আসে। তাহলে ইচ্ছা করলেও আগের সাবজেক্টে যেতে পারবে না। দেটস মিন রাষ্ট্রবিজ্ঞান চাইলেও আর পাবে না। তাই ভেবে চিন্তে মাইগ্রেশন on/off রাখবেন। মাইগ্রেশন নিয়ে বিস্তারিত পোস্ট আছে, নিচের কমেন্ট বক্সে লিংক দিয়ে দিবো।}

• তারপর পর সেভ বাটনে ক্লিক করে ফাইলটা সেভ করবেন আপনার কাজ আপাতত শেষ…

বিষয় পরিবর্তনের মাইগ্রেশনের আবেদন-

মেধা তালিকায় স্থান প্রাপ্ত কোন প্রার্থী তার বিষয় পরিবর্তন করতে চাইলে আবেদন ফরমে বিষয় পরিবর্তনের নির্দিষ্ট ঘরে Yes অপশন সিলেক্ট করতে হবে। তবে কোটা/রিলিজ স্লিপের মেধা তালিকায় স্থানপ্রাপ্ত প্রার্থীদের বিষয় পরিবর্তনের কোন সুযােগ থাকবে না…

আবেদন ফরমের প্রিন্ট-

সঠিক তথ্যপূর্ণ ভর্তির আবেদন ফরমটি Submit Application অপশনে ক্লিক করলে ভর্তির চুড়ান্ত আবেদন ফরম ওয়েবসাইটে প্রদর্শিত হবে। ফরমটি ডাউনলােড করে দুই কপি A4 (8.5”×11) অফসেট
কাগজে প্রিন্ট নিতে হবে। পরবর্তীতে রােল নম্বর ও পিন কোড দিয়ে একাধিকবার ফরমটি প্রিন্ট নেয়া যাবে…

সংশ্লিষ্ট কলেজে চুড়ান্ত ভর্তি ফরম জমা-

আবেদনকারীকে প্রিন্ট করা চূড়ান্ত ভর্তি ফরমের নির্দিষ্ট স্থানে স্বাক্ষর করতে হবে। এই আবেদন ফরমের  সঙ্গে আবেদনকারীর  SSC & HSC পরীক্ষার মূল মার্কশীট, মূল প্রশংসাপত্র এবং রেজিস্ট্রেশন কার্ডের ফটোকপি নিয়ে কলেজে স্বশরীরে গিয়ে ভর্তি হবেন নির্ধারিত সময়ে। চুড়ান্ত ভর্তির আবেদন ফরমের একটি কপি অধ্যক্ষ দায়িত্বপ্রাপ্ত শিক্ষকের স্বাক্ষর ও সীলসহ কলেজ কর্তৃপক্ষ শিক্ষার্থীকে ফেরত দিবে…

বিষয় পরিবর্তন বা মাইগ্রেশনের ফলাফল-

সংশ্লিষ্ট কলেজে বিষয়ভিত্তিক আসন শূন্য থাকা সাপেক্ষে ও মেধা স্কোরের ভিত্তিতে প্রার্থীকে তার বিষয় পছন্দক্রম অনুযায়ী বিষয় পরিবর্তন করে দেয়া হবে এবং ভর্তি সংশ্লিষ্ট ওয়েবসাইট ও SMS এর মাধ্যমে তা প্রার্থীকে জানানাে হবে। প্রার্থীর বিষয় পরিবর্তন হলে ওয়েবসাইট থেকে একই প্রক্রিয়ায় বিষয় পরিবর্তনের ফরম সংগ্রহ করে সংশ্লিষ্ট কলেজে জমা দিতে হবে। উল্লেখ্য যে, কোন প্রার্থীর বিষয় পরিবর্তন হলে তার পূর্বের বিষয়ের ভর্তি বাতিল হয়ে যাবে এবং পরিবর্তিত বিষয়ে তার ভর্তি নিশ্চিত হবে। তবে কোন প্রার্থীর বিষয় পরিবর্তন না হলে তার পূর্বের বিষয়ে ভর্তি বহাল থাকবে। বিষয় পরিবর্তনের ক্ষেত্রে প্রার্থীকে কোন ফি প্রদান করতে হবে না…

কোটার ফলাফল-

রিলিজ স্লিপের আবেদনের পূর্বে কোটার মেধা তালিকা প্রকাশ করা হবে। যে সকল প্রার্থী ইতােমধ্যে মেধা তালিকায় স্থান পেয়ে ভর্তি হয়েছে এবং একই সঙ্গে কোটায় নতুন বিষয় বরাদ্দ পেয়েছে সে সকল প্রার্থী কোটায় বরাদ্দকৃত বিষয়ে ভর্তি হতে চাইলে তাদের পূর্বের ভর্তি বাতিল হয়ে যাবে…

অনার্স ভর্তি নিশ্চায়ন সংশ্লিষ্ট কলেজ কর্তৃক অনলাইনে মেধা তালিকায় স্থান প্রাপ্ত প্রার্থীর ভর্তি নিশ্চয়ন/বিষয় পরিবর্তন হলে। জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের পক্ষ থেকে প্রার্থীকে SMS এর মাধ্যমে তা জানিয়ে দেয়া হবে। এছাড়াও প্রার্থী অনলাইনে Applicant Login অপশন থেকে তা জানতে পারবে…

#রিলিজ_স্লিপে_আবেদন_করার_শর্তাবলী_ও_ফরম_পূরণ_সম্পর্কিত_তথ্য-

যে সকল প্রার্থী মেধা তালিকায় স্থান পাবে না, স্থান পেয়ে ভর্তি হয়েও ভর্তি বাতিল করবে অথবা মেধা তালিকায় স্থান পেয়েও বরাদ্দকৃত বিষয়ে ভর্তি হবে না, সে সকল প্রার্থী শূন্য আসন সাপেক্ষে পাঁচটি কলেজে আলাদা ভাবে বিষয় পছন্দক্রম নির্ধারণ করে রিলিজ স্লিপের জন্য আবেদন করতে পারবে। যারা প্রাথমিক আবেদন করেনি তারা রিলিজ স্লিপে আবেদন করতে পারবেন না।
রিলিজ স্লিপ নিয়ে বিস্তারিত পোস্ট করবো, আশা করছি সাথে থাকবেন…

অনার্স চান্স প্রাপ্ত শিক্ষার্থীদের ভর্তি হতে যেসব কাগজপত্র লাগবে-

• অনলাইন থেকে মূল আবেদন ফরমের প্রিন্ট – ২ কপি (রেজাল্ট পাবার পর যেটা অনলাইনে ভর্তি ফরম পূরণ করে প্রিন্ট করবে সেটা)
• প্রাথমিক আবেদনের- ২ কপি (প্রথমে আবেদনের সময় যেটা পেয়েছিলে)
• পাসপোর্ট সাইজের ছবি ২/৪ টি।
• এসএসসি ও এইচএসসি এর প্রশংসা পত্র ও ২কপি ফটোকপি
• এসএসসি ও এইচএসসি মূল মার্কশীট ও  ২ কপি ফটোকপি
• এসএসসি ও এইচএসসি রেজিস্ট্রেশন কার্ডের ফটোকপি ২ কপি

জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের অনার্স ভর্তি পদ্ধতি, নম্বর বন্টন ও ফলাফল-

• জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের অনার্স ভর্তির ফলাফল ও মেধা তালিকা কয়েক ধাপে প্রকাশ করা হয়।  ১ম মেধা তালিকায় যারা চান্স পাবেনা তাদের জন্য ২য় মেধাতালিকা ও মাইগ্রেশনের রেজাল্ট প্রকাশ হবে।  এরপর কোটা ও ২য় মেধাতালিকার মাইগ্রেশন এর ফলাফল প্রকাশ করা হবে। এর পরেও যারা চান্স পাবেনা তাদের জন্য ১ম রিলিজ স্লিপ ও ২য় রিলিজ স্লিপের নতুন করে আবেদন করার সুযোগ পাবে…

• জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের অনার্স ভর্তির জন্য প্রতিটি কলেজের জন্য আলাদাভাবে মেধা তালিকা তৈরী করে প্রার্থীদের পছন্দক্রম অনুযায়ী ১ম বর্ষ স্নাতক (সম্মান) শ্রেণির বিষয় বরাদ্দ দেয়া হয়।

• একই প্রতিষ্ঠান/কলেজে একই বিষয়ে দুই বা ততােধিক আবেদনকারীর মেধাক্রম এক হলে সেক্ষেত্রে পর্যায়ক্রমে এ সকল আবেদনকারীর ৪র্থ বিষয়সহ SSC ও HSC পরীক্ষায় প্রাপ্ত জিপিএ এর যথাক্রমে ৪০% ও ৬০%, প্রয়ােজন হলে SSC ও HSC পরীক্ষার মােট প্রাপ্ত নম্বরের যথাক্রমে ৪০% ও ৬০%, এর পরেও যদি দুই বা ততােধিক আবেদনকারীর মেধাক্রম এক হয়, তা হলে যার বয়স কম হবে তাকে অগ্রাধিকার দিয়ে মেধাক্রম প্রণয়ন করা হবে।

অনার্সে মোট যতবার রেজাল্ট দিবে:

• প্রথম মেধা তালিকার ফলাফল
• দ্বিতীয় মেধা তালিকা এবং প্রথম মেধা তালিকার বিষয় পরিবর্তনের ফলাফল
• বিশেষ কোটা এবং দ্বিতীয় মেধা তালিকার বিষয় পরিবর্তনের ফলাফল
• ১ম রিলিজ স্লিপের ফলাফল
• ২য় রিলিজ স্লিপের ফলাফল  (প্রয়ােজনে একাধিকবার) মাধ্যমে সম্পন্ন করা হবে।

কেউ যদি ১ম মেরিটে সাবজেক্ট না পায় তারজন্য ২য় মেরিটে রেজাল্ট দিবে। যদি ১ম ও ২য় মেরিটেও সাবজেক্ট না পান তাহলে রিলিজ স্লিপে ৫টা কলেজে আবেদন করার সুযোগ দিবে। ১ম ও ২য় মেরিটে সাবজেক্ট পাবার পরও যদি ভর্তি না হোন তাহলেও রিলিজে ৫টা কলেজে আবেদন করতে পারবে আর যদি ভর্তি হয়ে যান তাহলে রিলিজ স্লিপে ৫টা কলেজে আবেদন করতে পারবেন না। ভর্তি হলেই মাইগ্রেশনের জন্য আবেদন করতে পারবেন। ভর্তি না হলে মাইগ্রেশনের জন্য আবেদন করা যায় না। কেউ যদি ১ম বা ২য় মেরিটে সাবজেক্ট পেয়ে ভর্তি না হয়ে রিলিজ স্লিপে আবেদন করতে চায় এবং রিলিজে যদি পছন্দ মত সাবজেক্ট না পায় তাহলে সে ইচ্ছা করলেও ১ম বা ২য় মেরিটে সাবজেক্ট টি তে ভর্তি হতে পারবে না। কারন কেউ যদি ভর্তি না হয় তখন তার তার সিট টা বাতিল হয়ে যায়। তাই ভাবিয়ে করিও কাজ, করিয়ে ভাবিয়েও না…

আর অনার্সে চান্স হয়নি? বা আবেদন করতে পারেন নি? জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের অনার্স প্রফেশনাল কোর্সে ভর্তির সুযোগ রয়েছে…
অনার্স প্রফেশনাল নিয়ে বিস্তারিত পোস্টের লিংক কমেন্ট বক্সে পেয়ে যাবেন।

তাছাড়া ডিগ্রি নিয়েও চাইলে পড়তে পারেন, ডিগ্রির আবেদন ১/২ মাসের মধ্যে শুরু হবে।

Similar Posts