ব্রাজিল-আর্জেন্টিনার পরিত্যক্ত ম্যাচটি আবারও হবে- ফিফা।

ব্রাজিল ও আর্জেন্টিনা যেন ব্যস্ত লুকোচুরি খেলতে। গত বছরে বিশ্বকাপ বাছাইয়ের ম্যাচ অনুষ্ঠিত হওয়ার কথা ছিল ব্রাজিলের মাটিতে। ম্যাচ গড়িয়ে ছিল মাঠেও, কিন্তু শেষ পর্যন্ত তাঁ আর সম্পন্ন হয়নি। এই ম্যাচ নিয়ে জল ঘোলা কম হয়নি, তবে শেষ পর্যন্ত তা আর পুনরায় মাঠে গড়ায় নি।

অবশেষে ফিফার পক্ষ থেকে সময় বেধে দেওয়ার জন্য আর্জেন্টিনা বনাম ব্রাজিলের মধ্যকার বিশ্বকাপ বাছাইপর্বের পরিত্যক্ত ম্যাচটি ব্রাজিলের সাও পাওলোর নিও কুইমিকা স্টেডিয়ামে অনুষ্ঠিত হবে। ম্যাচটি আগামী সেপ্টেম্বর মাসের ২২ তারিখে অনুষ্ঠিত হবে। তবে বাংলাদেশ সময় কয়টায় অনুষ্ঠিত হবে তা এখনও নিশ্চিত করা হয়নি।ফিফা সিবিএফকে ব্রাজিলে ম্যাচটি খেলার সুপারিশ করেছে, কারণ ব্রাজিল জাতীয় দলের কোচ তিতে ইউরোপে ম্যাচটি খেলতে চেয়েছিলেন।

গত বছরের সেপ্টেম্বরে বিশ্বকাপ বাছাইয়ের ম্যাচে মাঠে নেমেছিল আর্জেন্টিনা ও ব্রাজিল। কিন্তু পাঁচ মিনিট না যেতেই বন্ধ করে দেওয়া হয় দুই চির প্রতিদ্বন্দ্বী দেশের লড়াই। ব্রাজিলের স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের পক্ষ থেকে জানানো হয়, আর্জেন্টিনার চার খেলোয়াড় করোনা প্রটোকল ভঙ্গ করায় ম্যাচটি খেলা যাবে না।

ম্যাচটি এই জুন মাসের ১১ তারিখ অনুষ্ঠিত হতে চেয়েছিলো, কিন্তু আর্জেন্টিনার কোচ লিওনেল স্কেলোনি প্লেয়ারদের বিশ্রামের কথা চিন্তা করে সেই ম্যাচ আর খেলতে চান নি, কারণ গত পুরো বছর জুড়েই আর্জেন্টিনার সকল প্লেয়ার বিভিন্ন ক্লাবে টুর্নামেন্টের ম্যাচ খেলে ক্লান্ত, এতে তিনি প্লেয়ারদের উপর বেশি চাপ চান না। তাই সেই ম্যাচটি আবারও বাতিল ঘোষনা করা হয়, তবে ফিফার বেধে দেওয়া নিয়মের কারণেই এবার ব্রাজিলের সাথে আর্জেন্টিনাকে খেলতেই হবে ম্যাচটি।

বিশ্বকাপ বাছাইয়ের বিচারে এ ম্যাচটি অবশ্য গুরুত্বহীন। কেননা এরই মধ্যে ৪৫ পয়েন্ট নিয়ে লাতিন অঞ্চলের শীর্ষস্থান নিশ্চিত ব্রাজিলের এবং বিশ্বকাপ খেলা নিশ্চিত হয়ে গেছে । দুইয়ে থাকা আর্জেন্টিনাও ৩৯ পয়েন্ট নিয়ে নিজেদের অবস্থানে পাকাপোক্ত, তারাও বিশ্বকাপ অংশগ্রহণে নিশ্চিত হয়ে গেছে। তাই মূলত দুই দলের বিশ্বকাপ প্রস্তুতির অংশ হিসেবেই খেলা হবে ম্যাচটি।

Similar Posts