যাদের লক্ষ্য বিসিএস ও সরকারি জব তাদের জন্য।

#যাদের_লক্ষ্য_বিসিএস ও সরকারি জব তাদের জন্য। 

কি পড়বেন,  কোথা থেকে পড়বেন বা কিভাবে পড়বেন ???

১। জব সলুশন ব্যাখ্যাসহ পড়ে ফেলুন।বিসিএস অংশ আগে পড়ুন। এতে করে Question Pattern সম্পর্কে ভালো ধারণা পাবেন। কোন কোন চাকরিতে কি কি প্রশ্ন আসে তা বুঝতে পারবেন। প্রস্তুতি ও অনেকাংশ হয়ে যাবে।
প্রফেসর’স এর জব সলুশন পড়তে পারেন।

২। ইংরেজির ভোকাবুলারির একটা বই কিনে পড়া শুরু করুন। ওরাকলের  “Mnemonic Vocabulary” বইটা পড়তে পারেন।
গ্রামার অংশের জন্য A Brochure of English Grammar বইটা দেখতে পারেন। ৪৪ পৃষ্ঠার এই বইতে অনেক কিছুই জানতে পারবেন। দাম মাত্র ৩৫ টাকা।

৩। Preposition,  Phrase,  Substitution,  Definition,  Expression ইত্যাদি মুখস্থের বিষয়গুলো নিয়মিত পড়ুন। এগুলো English Apps বই থেকে পড়তে পারেন। প্রাকটিস করার জন্যও বইটা পড়তে পারেন।

৪। ইংরেজি সাহিত্যে পড়ার সময় কঠিন ও গুরুত্বপূর্ণ বিষয়গুলো নোট করে রাখুন। Confidence  এর A hand note on English  literature বইটা পড়তে পারেন। তবে অধিক গুরুত্বপূর্ণ  ১০/১২ লেখক ২/৩ টা বই থেকে ভালো করে নোট করে নিবেন।

৫। ব্যাসিক ম্যাথ দিয়ে শুরু করুন। যেকোন ব্যাসিক ম্যাথ মিনিমাম ২ বার শেষ করুন। খাইরুল’স ব্যাসিক ম্যাথ দিয়ে শুরু করতে পারেন।

৬। বাংলার জন্য লাল নীল দীপাবলি,  নবম-দশম শ্রেণির বাংলা ব্যাকরণ  ও অগ্রদূত বাংলা এই ৩ টা বই আগে পড়ুন।

৭। “বিশ্ব রাজনীতির ১০০ বছর” বই দিয়ে আন্তর্জাতিক শুরু করুন। এরপর MP3 পড়ুন।

৮। বাংলাদেশ বিষয়াবলীরর জন্য “বাংলাদেশের ইতিহাসঃ ১৯০৫ -১৯৭১বইটা দিয়ে শুরু করুন। এরপর  MP3।
সবশেষে  কনফিডেন্স  এর সংক্ষিপ্ত সাধারণ জ্ঞান  বইটা অবশ্যই পড়বেন।
বাংলাদেশ সংবিধান নিয়ে একটা বই পড়ে শেষ করুন। আরিফ খানের বইটা  পড়তে পারেন।গুরুত্বপূর্ণ অনুচ্ছেদ গুলো হাফেজদের মত মুখস্থ করে ফেলুন!

*সাধারণ জ্ঞানে ৭০+ মার্কস এবং পড়লে পারা যায়। তাই গুরুত্ব দিন এই সেক্টরে।

➤ সম্প্রতি তথ্যের জন্য  এখন থেকে প্যারা না নিয়ে দায়িত্বটা নাইম ভাইয়ের উপর ছেড়ে দেন। পরীক্ষার আগে রিসেন্ট ভিউ নামে একটা বই বের হবে ওইটা পড়লেই যথেষ্ট।

৯। সাতচল্লিশ থেকে একাত্তর  বইটা পড়ুন ৪৭-৭১ এর ধারাবাহিক ইতিহাসের জন্য।  বইটা আকারে খুব ছোট কিন্তু তথ্যবহুল।

১০। বিজ্ঞানের জন্য কনফিডেন্স এর সংক্ষিপ্ত বিজ্ঞান বইটা পড়তে পারেন।

১১। কিছু মৌলিক  ও মোটিভেশনাল বই পড়তে পারেন। যেমন:
কোয়ান্টাম মেথড, ইউ ক্যান উইন, উইংস অব ফায়ার, পাওয়ার অব পজিটিভ থিংকিং, অসমাপ্ত আত্নজীবনীসহ আপনার চাহিদা অনুযায়ী কিছু বই।

১২। নিয়মিত পত্রিকা পড়ুন। বাংলা ও ইংরেজি উভয়ই। সম্পাকদীয় পেজ বেশি পড়ুন।

১৩। যা পড়েছেন বা পড়ছেন তা নিয়ে ফ্রেন্ডদের সাথে আলোচনা করুন।

১৪. উপরে উল্লেখিত বইগুলো আবার পড়ুন।
১৫। পরীক্ষার ১৫/২০ দিন আগে Assurance Digest পড়া শুরু করুন।

বিবিধঃ

⇨ একই বিষয়ের পাঁচটা বই পাঁচবার না পড়ে একটা বই পাঁচবার পড়ুন।
⇨ সামনে যা দেখবেন তাই পড়বেন এই মনোভাব বাদ দেন।
⇨ নোট করে গুছিয়ে পড়ার চেষ্টা করুন।
⇨ বই দাগিয়ে পড়ুন।
⇨ এক জাতীয় তথ্যগুলো  একসাথে পড়ুন।  যেমনঃ পানি পথের তিন যুদ্ধের সাল, বাংলাদেশ কে নিয়ে কে কি বললেন যেমন কিসিঞ্জার,  হিউয়েং সাং,  জিয়া উদ্দিন ইত্যাদি।
⇨ প্রণালী,  সীমান্ত,  নদী,  সাগর-মহাসাগর ইত্যাদি ম্যাপ দেখে পড়ুন। এইভাবে কল্পনা করে পড়ুন যে, আপনাকে ভারত মহাসাগরে ছেড়ে দেওয়া হলো; যেতে হবে কৃষ্ণসাগরে সুয়েজ খাল ব্যবহার করে।  কোন কোন  সাগর, মহাসাগর, প্রণালী বা খাল পাড়ি দিয়ে যাবেন তা ম্যাপ দেখে জেনে নিন।
⇨ সিলেবাসের মোটামুটি ৮০% শেষ করুন।
⇨ দুনিয়ার সব কিছুই  মুখস্থ করতে যাবেন না। কিছু কিছু টপিকের কনসেপ্ট  ক্লিয়ার রাখতে বারবার রিডিং পড়ুন। আপনার কাছে বেশি কঠিন মনে হয় এই রকম কিছু টপিক বাদ দিতে পারেন তবে তা অবশ্যই মোট সিলেবাসের ১০% এর বেশি না।
⇨ একটা করে বই পড়া শুরু করবেন সেটা শেষ করে নতুন বই ধরবেন। প্রতিদিন তিনটার বেশি সাবজেক্ট পড়বেন না। ইংরেজি ভোকাবুলারি ও ম্যাথ প্রতিদিন পড়ুন।
⇨ প্রতি শনিবার বা অন্য যেকোনো একদিন রিভিশন দেওয়ার জন্য বরাদ্দ রাখুন। এই দিনে বিজ্ঞান,  বাংলা সাহিত্যে,  ইংরেজি সাহিত্য ইত্যাদি নিয়মিত রিভিশন দিবেন৷ বিগত সপ্তাহে যতটুকুই পড়েছেন ততটুকুই রিভিশন দিবেন।

Similar Posts